ইতিহাসের সবচেয়ে ভয়াবহ দাবানল কেড়ে নিলো ৪২ প্রাণ

ইতিহাসের সবচেয়ে ভয়াবহ দাবানল কেড়ে নিলো ৪২ প্রাণ

নভেম্বর ১৩, ২০১৮ : ৪:৪৫ অপরাহ্ণ || দৈনিক বাস্তবতা

print

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় অঙ্গরাজ্যটির ইতিহাসে সবচেয়ে মারাত্মক দাবানল ছড়িয়ে পড়েছে। এতে এ পর্যন্ত ৪২ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। তার মধ্যে ১৩ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সরকারের বুট্টি কাউন্টি বিভাগের শেরিফ কোরি হোনিয়া।

সোমবার (১২ নভেম্বর) ক্যালিফোর্নিয়ার দক্ষিণাঞ্চলের থাউস্যান্ড ওয়াকস শহর এলাকা থেকে ১৩টি মরদেহ উদ্ধার করা হয়। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম বলছে, অঙ্গরাজ্যটির দক্ষিণাঞ্চলের চারপাশে কয়েকটি দাবানল ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়েছে। যা ক্যালিফোর্নিয়ার ইতিহাসে সবচেয়ে প্রাণনাশক দাবানল। এ দাবানল ৪২ জনের প্রাণ কেড়ে নেওয়া ছাড়াও অন্তত দেড় লাখ মানুষকে আবাসস্থল ছাড়তে বাধ্য করেছে। যদিও তাদের নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হয় আরও দুইদিন আগেই।

ভয়াবহ রকমের ক্রমাগত এ দাবানল দক্ষিণাঞ্চলের বাড়ি-ঘরগুলোকে বড় হুমকির মুখে ফেলে দিয়েছে। দেশটির আবহাওয়াবিদ ডেব হেনেন জানিয়েছেন, তীব্র বাতাসের কারণে মঙ্গলবার (১৩ নভেম্বর) ক্যালিফোর্নিয়ার সান্তা আনা শহরেও শক্তিশালী দাবানল ছড়িয়ে পড়তে পারে। তাই আগে থেকেই সকলকে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে।

এদিকে, অগ্নিনির্বাপক কর্মীরা দাবানল নিয়ন্ত্রণে আনতে তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। সোমবার তারা ফায়ার ক্যাম্প থেকে অগ্রগতি পেয়ে এর তৎপরতা চালান। সেসময় তারা অনেক মরদেহও উদ্ধার করেন। বুধবার (৭ নভেম্বর) ক্যালিফোর্নিয়ার লস এঞ্জেলস শহরের ৪০ মাইল উত্তর-পশ্চিমে থাউস্যান্ড ওয়াকস এলাকায় দাবানলের সূত্রপাত হয়। সে সময়ই সরিয়ে নেওয়া হয় অন্তত ৭৫ হাজার ঘরবাড়ির লোকজনকে। এলাকাটি বৃহস্পতিবার (৮ নভেম্বর) একটি বারে বন্দুকধারীর গুলিতে পুলিশ সদস্যসহ ১২ জনের মৃত্যু হয়।

দাবানল ছড়িয়ে পড়ায় নতুন করে আরও লোকজনকে নিরাপদে সরে যেতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বিশেষ করে থাউস্যান্ড ওয়াকসের কালাবাসাস এবং মালিবু উপকূলের লোকজনকে। ওইসব এলাকায় হলিউডের অনেক তারকা বসবাস করেন।

Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on Twitter0Share on LinkedIn0Share on Reddit0



Daily Bastobota | bangla news
সম্পাদক : মোঃ জান্নাতুল বাকি
প্রকাশক : আব্দুল মান্নান তালুকদার
মোক্তার বার ভবন (২য় তলা), নিউ মার্কেট রোড, বাগেরহাট।
টেলিফোন : ০৪৬৮-৬৪৭১১
ই-মেইল: dbastobota@gmail.com